নানা সমস্যায় জর্জরিত সৌন্দর্যের সম্ভার সেন্টমার্টিন

st-martin-prob-jpgedt-93532.jpg

কক্সবাজার রিপোর্ট :

সাধারণ পর্যটকদের ব্যাপক আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলায় নানা সমস্যায় জর্জরিত দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন। ড্রেজিংয়ের অভাবে সৃষ্ট ডুবোচরের কারণে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। এতে যাত্রাপথে লাগছে এক ঘন্টার বেশি সময়। তেমনি জাহাজ থেকে ওঠা-নামার জেটিঘাটও ভাঙা-চোরা। ফলে পর্যটকদের পড়তে হচ্ছে নানা ভোগান্তিতে। অবশ্য ডুবোচরের মাটি অপসারণ এবং জেটি সংস্কারে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেয় উপজেলা প্রশাসন।

সাগরের স্বচ্ছ পানি, সারি সারি নারিকেল গাছ, নয়নাভিরাম নৌকা, এদিক-ওদিক ঘুরে বেড়ানো, কি নেই এখানে। তার সঙ্গে বাড়তি হিসাবে রয়েছে যাত্রা পথে সামুদ্রিক নানা পাখির জাহাজের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উড়ে বেড়ানো। এসবই বার বার কাছে ডেকে আনে দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন। বাড়তি আকর্ষণ রয়েছে প্রয়াত জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক ডক্টর হুমায়ুন আহমেদের তৈরি সমুদ্র বিলাস নামের বাড়িটি।

কিন্তু অসাধারণ এ সৌন্দর্য দেখতে যাওয়ার পথে পর্যটকদের পরতে হয় নানা ভোগান্তিতে। বিশেষ করে টেকনাফের শাহপরী দ্বীপ থেকে শুরু করে বদরে মোকাম পর্যন্ত কয়েক কিলোমিটার পথে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য ডুবো চর। যে কারণে পর্যটকবাহী জাহাজগুলোকে বিপজ্জনকভাবে মিয়ানমার সীমান্ত ঘেঁষে চলাচল করতে হচ্ছে। সময় লাগছে বাড়তি এক ঘণ্টা।  শুধু ডুবোচর নয়, সেন্টমার্টিন অংশের জাহাজ থেকে নামার জেটিও ভেঙেচুরে একাকার।

এতো সমস্যা এবং ভোগান্তির মাঝেও পর্যটকদের সেন্টমার্টিন নিয়ে আনন্দ-উচ্ছ্বাসের শেষ নেই। তবে ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে ডুবোচরের মাটি অপসারণ এবং ভেঙে যাওয়া জেটি দ্রুত মেরামত করতে সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোকে চিঠি দেয়া হয়েছে বলে জানান টেকনাফ উপজেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হোসেন ছিদ্দিক জানান, ‘ড্রেজিংয়ের
সমস্যা ও ভেঙে যাওয়া জেটি দ্রুত মেরামত করতে সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোকে চিঠি দেয়া হয়েছে। আশা করছি খুব শিগগিরই সব মেরামত করা হবে।’

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার একটি ইউনিয়ন সেন্টমার্টিন। এর পাশেই রয়েছে ছেঁড়া দ্বীপ। আর এখানে পর্যটন মৌসুমে প্রতিদিন সাড়ে পাঁচ হাজারের বেশি ভ্রমণকারী আসেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top