পেকুয়ায় মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার ৪র্থ দিন অতিবাহিত আওয়ামীলীগকে আবারও ক্ষমতায় আনতে ঐক্যবদ্ধতার বিকল্প নেই

ZahirChakaria-23.12.2017.docx.jpg

চকরিয়া অফিস :
বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে এদেশ আদৌ স্বাধীন হতো কিনা সন্দেহ ছিল। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ত্যাগ বাঙ্গালী জাতি চিরদিন মনে রাখবে। পেকুয়ায় সর্বপ্রথম অনুষ্টিতব্য এই মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের অসম্প্রদায়িক চেতনা সমাজের সর্বস্তরে ছড়িয়ে দিতে হবে। স্বাধীনতার বিরোধীরা এখনও দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির বিরুদ্ধে চক্রান্ত করছে। তারা আমাদের সব অর্জন নস্যাৎ করতে উৎপেতে আছে। তাদের সাথে বিএনপি জোট করে চোরা পথে ক্ষমতায় আসার জন্য চাইছে।
বক্তারা বলেন এদেশে নির্বাচন না করে কেউ কোনদিন ক্ষমতায় আসতে পারবে না। এদেশের অগ্রগতি, সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য আবারও আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় আসতে হবে। সেজন্যে আগামী নির্বাচনের আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এই ঐক্যবদ্ধতার কোন বিকল্প নেই। গত ২৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় পেকুয়া কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিতব্য মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার ৪র্থ দিনে বক্তারা এসব কথা বলেছেন।
পেকুয়া মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত এই স্মৃতিচারণ মুলক অনুষ্টানে সভাপতিত্ব করেন পেকুয়া মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদযাপন কমিটির কো চেয়ারম্যান পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহসভাপতি, চকরিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম। মাষ্টার হানিফ চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্টিত এই স্মৃতিচারণ মুলক অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আবু হেনা মোস্তফা কামাল। বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম গিয়াস উদ্দিন, বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য, পেকুয়া জিএমসি ইনস্টিটিউশনের (পেকুয়া উচ্চ বিদ্যালয়) পরিচালনা পরিষদের সভাপতি উম্মে কুলসুম মিনু, বিজয় মেলার কো চেয়ারম্যান পেকুয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মাষ্টার ছাবের আহমদ, বিজয় মেলার কো চেয়ারম্যান জাতীয় পার্টির নেতা এস এম মাহবুব সিদ্দিকী, উপস্থিত ছিলেন বিজয় মেলা পরিষদের সদস্য সচিব, জেলা পরিষদের সদস্য, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, বক্তব্য রাখেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন আহমেদ, উপস্থিত ছিলেন বিজয় মেলা পরিষদের কো চেয়ারম্যান শহীদুল্লাহ বিএ, বিজয় মেলার কো চেয়ারম্যান, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা কাজিউল ইনসান, কো চেয়ারম্যান মাশেক আহমদ, মুফিজুর রহমান, পেকুয়া উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি এইচএম নুরুল আবছার, এম কম কামাল হোসেন, মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী মর্জিনা বেগম। স্মৃতিচারণ মুলক অনুষ্ঠানে বক্তব্যের পাশাপাশি দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন ও কবিতা আবৃত্তি করেন নদী চক্রবর্তী, শামশুদ্দিন, শাখাওয়াত হোসেন সুমন ও বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। এ মেলা আরও সপ্তাহ ব্যাপী চলবে বলে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন। অত্যান্ত শান্তিপূর্ণ ভাবে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে এ মেলা অনুষ্টিত হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top