ইয়ারি মিনাকেও কিনে ফেলল বার্সেলোনা

maxresdefault.jpg

খেলা ডেস্ক॥
ফিলিপে কুতিনহোকে দলে ভেড়ানোর আনন্দের রেশ এখনো কাটেনি। এরই মধ্যে বার্সেলোনার ড্রেসিংরুমে যোগ দিলেন নতুন আরেক সদস্য। ব্রাজিলিয়ান ক্লাব পালমেইরাস থেকে ডিফেন্ডার ইয়ারি মিনাকে কিনে ফেলল বার্সেলোনা। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরেই চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা সেরে ফেলা হয়েছে। চুক্তিপত্রে সই করে ইয়ারি মিনা হয়ে গেছেন মেসি-সুয়ারেজ-কুতিনহোদের সতীর্থ।

বার্সেলোনার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটেই এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়েছে কলম্বিয়ান এই ডিফেন্ডারের সঙ্গে চুক্তি সেরে ফেলার বিষয়টি। ২৩ বছর বয়সী ইয়ারি মিনার সঙ্গে বার্সার চুক্তিটা ১১.৮ মিলিয়ন ইউরোর।

কুতিনহোর সঙ্গে চুক্তিটা যেখানে ১৬০ মিলিয়ন ইউরোর, সেখানে ১১.৮ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তি কোনো বড় কোনো ঘটনা নয়। তবে এই চুক্তিটা প্রমাণ করে দিল, বার্সেলোনার নতুন খেলোয়াড় ক্রয়ের ক্ষুধা কতটা তীব্র।

কুতিনহোকে কেনার মধ্য দিয়েই রিয়াল মাদ্রিদের ৯ বছরের পুরোনো রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে বার্সা। গড়েছে এক মৌসুমে খেলোয়াড় ক্রয়ের পেছনে সর্বোচ্চ খরচের নতুন রেকর্ড। ২০০৯/১০ মৌসুমে নতুন খেলোয়াড় ক্রয়ের পেছনে রিয়াল খরচ করেছিল ২৫৭.৪ মিলিয়ন ইউরো। এতোদিন সেটাই ছিল এক মৌসুমে খেলোয়াড় ক্রয়ে কোনো ক্লাবের সর্বো্চ্চ খরচের রেকর্ড।

কুতিনহোকে কেনার মধ্যদিয়ে বার্সেলোনা সেই রেকর্ড শুধু ভেঙেই দেয়নি, নতুন রেকর্ডটিকে তুলেছে অনেক উচ্চতায়। কুতিনহোর চুক্তি মিলিয়ে ২০১৭/১৮ মৌসুমে খেলোয়াড় ক্রয়ে বার্সেলোনা নগদই খরচই ৩১২.৫ মিলিয়ন ইউরো। ইয়ারি মিনাকে কেনার মধ্য দিয়ে অঙ্কটা এখন ৩২৪.৩ মিলিয়ণ ইউরোতে গিয়ে ঠেকল!

এরপরও বার্সার নতুন খেলোয়াড় ক্রয়ের ক্ষুধা মেটেনি। স্প্যানিশ গণমাধ্যমের খবর, অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের ফরাসি ফরোয়ার্ড আতোইন গ্রিজমানকেও কিনতে মরিয়া বার্সেলোনা।

বার্সার খেলোয়াড় ক্রয়-ক্ষুধা কোথায় গিয়ে মেটে, সেটা বলবে সময়। তবে ২৩ বছর বয়সী ইয়ারি মিনার সঙ্গে চুক্তি করতে পেরে খুশি বার্সা। ক্লাব বার্সার চেয়েও বেশি খুশি ইয়ারি মিনা। কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার সেই ছোটবেলা থেকেই নাকি স্বপ্ন দেখতেন বার্সেলোনার মতো বিশ্বসেরা ক্লাবে খেলার।

তরুণ এই ডিফেন্ডারের সঙ্গে চুক্তির বিষয়ে অনেক দিন আগে থেকেই কথা-বার্তা চালিয়ে আসছিল বার্সেলোনা। কিন্তু পালমেইরাস রাজি হচ্ছিল না। অবশেষে বুধবার সকালে ব্রাজিলিয়ান ক্লাবটি ইয়ারি মিনাকে বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি করার অনুমতি দেয়।

ক্লাবের অনুমতি পেয়ে এক মুহূর্ত অপচয় করেননি ইয়ারি মিনা। সঙ্গে সঙ্গেই চড়ে বসেন বার্সেলোনাগামী বিমানে। রাতে বার্সেলোনায় পৌঁছে দুপুরেই সেরে ফেললেন চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top