বিদেশি পর্যটকবাহি বাস ভাংচুর, দুই পুলিশ সদস্য আটক

pppwerwrrw.jpg

আজিম নিহাদ♦
কক্সবাজার শহরের কলাতলী এলাকায় বিদেশি পর্যটকবাহি একটি বাসে ভাংচুর চালিয়ে দুই পুলিশ সদস্য। এঘটনায় জড়িত দুই পুলিশকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের জিম্মায় আটক রাখা হয়েছে। শুক্রবার রাত আটটায় কলাতলী মোড় এলাকায় এঘটনায় ঘটে।

গত ৯ জানুয়ারি সাভারের বাংলাদেশ হেলথ প্রফেশন্স ইনস্টিটিউটের রিহাবিলিটেশন সাইন্স বিভাগের মাষ্টার্সের ২৭ জন বিদেশি শিক্ষার্থীসহ ৪০ জন শিক্ষাসফরে কক্সবাজার আসেন। ২৭ জন বিদেশি শিক্ষার্থীরা হলেন সার্কভুক্ত দেশগুলোর নেপাল, শ্রীলংকা, আফগানিস্তান ও মালদ্বীপের। গতকাল শুক্রবার রাত পৌনে আটটার দিকে টেকনাফ থেকে ফেরার পথে ওই পর্যটকবাহি বাস কক্সবাজার শহরে প্রবেশের সময় কলাতলী মোড়ের ডলফিন চত্বরে বিপরীতমুখি শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস ওই বাসকে ধাক্কা দেয়। এসময় পর্যটকবাহি বাসের ধাক্কা লাগে পাশের একটি ইজিবাইকে। ওই সময় তাৎক্ষণিক সাদা পোশাকধারী দুই ব্যক্তি নিজেদের দাঙ্গা পুলিশ পরিচয় দিয়ে বিদেশি পর্যটকবাহি বাসকে আটকে দেন।

এক পর্যায়ে ওই দুই পুলিশ সদস্য উত্তেজিত হয়ে পর্যটকবাহি বাসের সামনের অংশের বামপাশের গ্লাসে ইট নিক্ষেপ করেন। এতে বাসের কয়েকটি গ্লাস ভেঙে যায়। আতঙ্কিত হয়ে পড়ে বিদেশি পর্যটকেরা। এরপরও ক্ষান্ত হয়নি ওই দুই পুলিশ সদস্য। বিদেশি শিক্ষার্থী পর্যটক ও শিক্ষকদের মারধর করার উদ্যত হয়ে উঠে তারা। এসময় তারা আশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের।

এক পর্যায়ে জিম্মি করে কলাতলী মোড় থেকে বিদেশি পর্যটকবাহি বাসটি সুগন্ধা মোড় এলাকায় নিয়ে আসে। এরমধ্যেই বিদেশি পর্যটকবাহি বাসের যাত্রীরা ঘটনাটি শিক্ষামন্ত্রণলায়ের মাধ্যমে কক্সবাজার জেলা প্রশাসককে অবহিত করে। পরে রাত ১০ টার দিকে জেলা প্রশাসনের পর্যটন শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম জয় ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ সদস্যদের জিম্মিদশা থেকে পর্যটকবাহি বাস ও যাত্রীদের উদ্ধার করেন। পরে ওই দুই পুলিশ সদস্যকে আটক করেন। আটক দুই পুলিশ সদস্য হলেন, সুমন ত্রিপুরা ও জহিরুল হক।

জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম জয় ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, জেলা প্রশাসকের নির্দেশে তিনি ঘটনাস্থলে পৌছেন। ওই সময়ও পর্যটকবাহি বাসটি ওই দুই পুলিশ সদস্য জিম্মি করে রাখে। পরে বিদেশি পর্যটকবাহি বাসের চালকসহ যাত্রীদের সাথে কথা বলে ওই দুই পুলিশ সদস্যের জিম্মিদশা থেকে বাসটি উদ্ধার করেন। এসময় জড়িত দুই পুলিশ সদস্যকে তিনি জিম্মায় নেন।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিকভাবে তিনি জেনেছেন, ইজিবাইকে সামান্য ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে দুই পুলিশ সদস্য ঘটনাটি ঘটিয়েছেন। এঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠিত হবে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন অনুযায়ী জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভুক্তভোগি ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ইজিবাইকে সামান্য ধাক্কা লাগার সময় কলাতলী মোড়ে অবস্থান করছিলেন পুলিশ সদস্য সুমন ত্রিপুরা ও জহিরুল ইসলাম। এরমধ্যে সুমন ত্রিপুরা জেলা পুলিশের কনস্টেবল ও জহিরুল ইসলাম আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ানের সদস্য।

ঘটনাস্থলে কথা হয় বাংলাদেশ হেলথ প্রফেশন্স ইনস্টিটিউটের মাস্টার্স কোর্সের সমন্বয়ক সাকিব খানের সঙ্গে। তিনি বলেন, সামান্য একটি ঘটনায় দুই পুলিশ যে ধরণের আচরণ করেছে তা কখনোই কাম্য নয়। তারা (পুলিশ সদস্য) নিজেদের দাঙ্গা পুলিশ পরিচয় দিয়ে নানা ধরণের হুমকি ধমকি ও আশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। তাদের কাছে ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ নাসিরুল ইসলাম সামান্য ধাক্কা লাগার জন্য বেশ কয়েকবার ক্ষমা প্রার্থনা করেন। কিন্তু তারা কোন ভাবেই শোনেননি। অধ্যক্ষের সাথেও তুই তোকারি করে কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, বাসে বিদেশি শিক্ষার্থী থাকার বিষয়টি অনেকভাবে বুঝানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তারা বুঝতে চাননি। উল্টো গাড়ির দরজা খোলে মারধর করার জন্য বার বার এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। দরজা বন্ধ করে রাখার কারণে মারধর করার সুযোগ পায়নি।

ওই ইনস্টিটিউটের আরেক কর্মকর্তা মো. লোকমান বলেন, পুলিশ সদস্যরা যখন দীর্ঘ আড়াইঘন্টা ব্যাপী টর্চার করেন, তখন মারাত্মকভাবে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে বিদেশি শিক্ষার্থীরা। অনেকে ভয়ে কাঁপতে থাকেন। কারণ ওই দুই পুলিশ সদস্য পরপর দুইবার গাড়িতে হামলা চালায়। প্রথমে নারকেল ছুটে মারে। পরে ইট মেরে গ্লাস ভেঙে তছনছ করে। এবং গাড়িতে ঢুকে মারধর করার উদ্যত হয়ে উঠে।

তিনি আরও বলেন, হামলা করার সময় ওই দুই পুলিশ নিজেদের ক্ষমতা সম্পর্কে জাহির করতে থাকেন। এক পর্যায়ে ইজিবাইকের যাত্রী মারা গেছে বলে ভয় দেখাতে থাকেন। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ওই ইজিবাইকের কেউ আহত পর্যন্ত হয়নি।
ঘটনাস্থলে কথা হয় অভিযুক্ত সুমন ত্রিপুরা ও জহিরুল হকের সাথে। তারা বলেন, ইজিবাইকে ধাক্কা দিয়ে বাসটি পালিয়ে যাচ্ছিল। তাই তারা বাসটি থামায়। তবে গ্লাস ভাংচুরের বিষয়টি তারা অস্বীকার করেন। তারা বলেন, উত্তেজিত লোকজন গ্লাসটি ভাংচুর করেছে। কারা করেছে সেটা তারা নিশ্চিত নয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top