শীতে জবুথবু ইজতেমার মুসল্লিরা

Screenshot_1_6.jpg

কক্সবাজার ডেস্ক॥
টঙ্গীর তুরাগ তীরে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের দ্বিতীয় দিন শনিবার। ফজরের নামাজের পর থেকে তাবলিগ জামাতের মুরুব্বিরা বয়ান দিচ্ছেন। তবে সারাদেশে চলা শৈত্যপ্রবাহের প্রভাব ইজতেমা ময়দানেও পড়েছে। ঘন কুয়াশা আর তীব্র শীতে আগতদের জবুথবু অবস্থা। ঘন কুয়াশার কারণে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া শামিয়ানার নিচ থেকে মুসল্লিরা কেউ বের হচ্ছেন না। এরই মধ্যে চলছে ধর্মীয় বয়ান। গভীর মনোযোগের সঙ্গে বয়ান শুনছেন তারা।

শনিবার বাদ ফজর থেকে বয়ান করছেন বাংলাদেশের মুরুব্বি নূরুর রহমান। কয়েক লাখ মুসল্লি ইসলামের আমল, আকিদা ও করণীয় বিষয়ে তার বয়ান শুনছেন।

এবার ইজতেমার প্রথম পর্বে ৭৩টি দেশের প্রায় সাড়ে ৪ হাজার মুসল্লি এসেছেন। তাছাড়া দেশের ১৬টি জেলার কয়েক লাখ মুসল্লি অংশ নিয়েছেন।

আগামীকাল রোববার দুপুরে আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে প্রথম পর্বের বিশ্ব ইজতেমা। ধারণা করা হচ্ছে, আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে প্রতিবারের মত এবারো বিপুল সংখ্যক মানুষ ইজতেমা ময়দানে আসবেন।

গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার হারুন-অর রশিদ জানান, আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে শনিবার মধ্যরাত থেকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মীরেরবাজার থেকে আব্দুল্লাহপুর, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বাইপাইল থেকে আব্দুল্লাহপুর এবং ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভোগড়া বাইপাস থেকে উত্তরা পর্যন্ত সাধারণ যান চলাচল সীমিত রাখা হবে।

রেলওয়ে বিভাগ আখেরি মোনাজাতের অতিরিক্ত মুসল্লি সামলাতে টঙ্গি স্টেশনে অতিরিক্ত ট্রেনের যাত্রাবিরতির ব্যবস্থা নিয়েছে।

ইজতেমার মুরুব্বি প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন বলেন, ‘তীব্র শীতের কারণে মুসল্লিরা বাইরে বের হতে পারছেন না। তবে তাবুতে বসেই বয়ান শুনছেন তারা। আখেরি মোনাজাতে দেশ ও মানুষের কল্যাণ কামনা করা হবে।’

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top