সেন্টমাটিনে ধরা পড়ল ৯১ কেজির ভোল মাছ

jashim-mahud-teknaf-13.docx_n.jpg

টেকনাফ প্রতিনিধি :
সেন্ট মার্টিনের দক্ষিণ-পশ্চিমে ‘পাথরের বান’ নামক সাগরে উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপের মিস্ত্রিপাড়ার বাসিন্দা হাফেজ আহমদের মালিকানাধীন ট্রলারের বরশিতে এ শনিবার ভোরে ভোল মাছটি ধরা পড়ে। মাছটি লম্বা সাড়ে পাঁচ ফুট ও ওজন ৯১ কেজি। পরে দুপুর ১ টার দিকে মাছটি নিয়ে ট্রলারটি সেন্ট মার্টিন জেটি ঘাটে এসে পৌঁছালে উৎসুক মানুষ মাছটি দেখতে ভিড় জমায়। পরে নৌকা থেকে নামিয়ে জেলেরা রশি বেধে পানিতে ভাসিয়ে টেনে টেনে সেন্টমাটিন জেটিতে নিয়ে আসে। পরে জেলেদের কাছ থেকে ৬৮ হাজার টাকায় স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী আবদুল আজিজ মাছটি কিনে নেয়।
মাছ ব্যবসায়ী আবদুল আজিজ বলেন সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে আসা দেশি-বিদেশি পযর্টকদের খাওয়ানো উদ্দেশ্যে ৯১ কেজির ওজনের একটি ভোল মাছ কিনেছি।
তিনি আরও বলেন সেন্টমার্টিনে এখন প্রচুর পযর্টক বেড়াতে আসছেন। মাছটি ক্রয় করে দ্বীপের হোটেল গুলোতে বিক্রয় করবেন। রোববার সকালে মাছটি কেটে প্রতি কেজি ৮৫০ টাকা করে বিক্রি করা হবে। এরই মধ্যে বিভিন্ন হোটেলের মালিক ও স্থানীয়রা ৬৭ কেজি মাছ আগাম কিনতে টাকা দিয়েছেন।
ট্রলারের মালিক হাফেজ আহম্মদ বলেন শুক্রবার বিকেলে আটজন জেলে নিয়ে ট্রলারটি সেন্ট মার্টিন দ্বীপের দক্ষিণ-পশ্চিমে পাথরের বান নামক সাগরে জাল ও বরশি ফেলে। সকালে বরশি তুলে তারা দেখতে পান বড় একটি ভোল মাছ বরশিতে আটকা পড়েছে। পরে সেন্টমাটিন জেটিতে তুলে ৬৭ হাজার টাকা দিয়ে মাছটি বিক্রি করি।
সেন্ট মার্টিন সার্ভিস ট্রলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ আলম বলেন, এই মৌসুমে জেলেদের বরশিতে বড় বড় মাছ আটকা পড়ে । এ রকম বড় মাছ গত পাঁচ বছর আগে একটি (চারমণ ওজনের) মাছ ধরা পড়েছিল। বরশিতে একটি বড় মাছ আটকাপড়ার খবরটি পযর্টকেরা শুনে অনেকে দেখতে ভিড় করছে আর সেলফি তুলছেন মাছের সঙ্গে। আর ভোল মাছ খেতে খুবই সুস্বাদু বলে তিনি নিজেও দুই কেজির আগাম অর্ডার দিয়েছেন।
টেকনাফ উপজেলা জ্যেষ্ট মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, এ মাছ সাধারনত গভীর সাগরেই পাওয়া যায়। সম্ভবত মাছটি পথ হারিয়ে চলে আসায় জেলের বরশিতে ধরা পড়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top