কক্সবাজারে শুরু হয়েছে সপ্তহব্যাপী বইমেলা

Coxs-Book-fair-news.doc-1.bmp

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
“চেতনার জাগরণে বই ” এ প্রতিপাদ্যে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শুরু হয়েছে সপ্তহব্যাপী বইমেলা। বুধবার বিকেলে পাবলিক লাইব্রেরীর শহীদ দৌলত ময়দানে সপ্তহব্যাপী বইমেলার উদ্বোধন করেন জাতীয় গ্রন্থাগারের পরিচালক একেএম রেজাউল করিম। পরে এ উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের অধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার প্রদীপ্ত খীসা, কক্সবাজার সরকরী কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মো: গিয়াস উদ্দীন, বইমেলা উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব এ্যাডভোকেট তাপস রক্ষিত, সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির সহ-সভাপতি আলমগীর মল্লিক বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আহসানুল হক।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বই মানুষের চিরসঙ্গী আর এই বইমেলা যেন লেখক, প্রকাশক ও পাঠকদের মিলনমেলা। কোনদেশ কতটুকু সভ্য তা বোঝা যায় সে দেশের লাইব্রেরী, মিউজিয়াম ও আর্কাইভ কতটুকু সমৃদ্ধ। বই জ্ঞানের ভান্ডার। আমরা সৌভাগ্যবান যে, এই ডিজিটাল যুগে আমাদের বসবাস। বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয়। আর এই বিশ্বকে জানতে হলে বেশী করে ভাল মানের বই পড়তে হবে। বই আমাদের অন্তর্দৃষ্টি উন্মুক্ত করে। বই শুধু আনন্দের জন্য নয় বাঁচার জন্যও পড়তে হবে। সামাজিক প্রেক্ষাপটে বই আমাদের মানসম্মত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারে। উন্নত জাতিতে পরিণত হতে শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভাল বই পাঠ করতে হবে। বইপড় এ উক্তিকে ধারণ করে বই পড়ার অভ্যাস গড়তে হবে। জ্ঞানবান হওয়ার জন্যে শুধু নয় মানুষের মত মানুষ হতে বই পড়া প্রয়োজন। আর তাই সাহিত্য চর্”চার মাধ্যমে নাশকতার পথ ও কোন অপরাধমূলক কাজ থেকে দূরে থাকা যায়। শিক্ষার্থীরা জ্ঞান সমৃদ্ধ হবে বই পড়ার মাধ্যমে। স্থানীয় জনগোষ্ঠীও সপ্তাহব্যাপী বই মেলায় উপকৃত হবে বলে আশা করি।
সংসকৃতি মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত হচ্ছে এই বইমেলা।
বই মেলার সমাপনী দিনে সর্বোচ্চ বই ক্রেতা ও বিক্রেতাদের পুরস্কার প্রদান করা হবে।
প্রতিদিন বিকেল তিনটা থেকে রাত ন’টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত মেলায় বাংলা একাডেমী ও নজরুল ইনষ্টিটিউটসহ দেশের ৪৩টি খ্যাতিমান প্রকাশনা সংস্থার বই পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া মেলায় প্রতিদিন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনও করা হয়েছে। এতে সকলকে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে।

Top