ড. ইউনুসের বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা

Yunus-2.jpg

কক্সবাজার ডেস্ক :

বালু ভরাট নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্টের চেয়ারম্যান, নোবেলবিজয়ী মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক ঠিকাদার। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তাজ এন্টারপ্রাইজের মালিক বাহাদুর ইসলাম ইমতিয়াজ মঙ্গলবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে মামলাটি করেন। মামলার আরজিতে ইমতিয়াজ নিজেকে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবেও পরিচয় দিয়েছেন।
ইমতিয়াজের অভিযোগ, ঢাকার সাভারের আশুলিয়ার জিরাবর ঘোষবাগ এলাকায় গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্টের মালিকানাধীন জমিতে বালু ভরাটের কাজ পেয়ে তার করলেও অর্থ পরিশোধ না করে উল্টো হুমকি দেওয়া হচ্ছে তাকে। মহানগর হাকিম সুব্রত ঘোষ বাদীর জবানবন্দি নিয়ে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য রাজধানীর পল্লবী থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে ওই আদালতের পেশকার মো হেলাল উদ্দিন জানিয়েছেন। প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৬ এপ্রিল দিনও ঠিক করে দিয়েছেন হাকিম।
পেশকার হেলাল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “তাজ এন্টারপ্রাইজের সঙ্গে বালু ভরাট নিয়ে প্রতারণা পূর্বক বিশ্বাস ভঙ্গ করার অভিযোগে ড ইউনূসের বিরুদ্ধে এ মামলাটি করা হয়।” দ-বিধির ৪০৬, ৪২০ ও ৫০৬ ধারার করা এ মামলায় ইউনূস ছাড়াও আরও তিনজনকে আসামি করেছেন ঠিকাদার ইমতিয়াজ। তারা হলেন- গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান, গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্টের দুই কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম ও আসাদুল্লাহ দেওয়ান।
মামলায় অভিযোগ করা হয়, তাজ এন্টারপ্রাইজ বালু ভরাট বাবদ গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্টের কাছে ৬ কোটি ৮৫ লাখ ৮৯ হাজার ৪ টাকা পায়। কিন্তু অর্থ দিতে গড়িমসি করে আসছেন বিবাদীরা। “সর্বশেষ ১১ ফেব্রুয়ারি টাকা দেওয়ার বিষয়ে একটি সমঝোতা হয়। সমঝোতা অনুযায়ী তার টাকা চাইলে আসামিরা হুমকি প্রদান করেন,” আরজিতে বলেন ইমতিয়াজ। গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্ট সামাজিক ব্যবসার নানা উদ্ভাবনী পরিকল্পনায় পৃষ্ঠপোষকতা করে।

Top