বোরো ধানে হাসির ঝিলিক

1-1.jpg

এম. বেদারুল আলম :
এবার বোরো ধানে স্বপ্ন বুনছে কৃষকরা। মাঠে পাকা ধানের মৌ মৌ গন্ধ। ধানের দাম ও ভাল। কক্সবাজারে এ বছর বোরো ধানের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। কৃষকদের খুঁশিতে ভাগ বসিয়েছে কৃষি অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। সরকার সার ও বীজে বিশেষ প্রনোদনা দিয়ে কৃষকদের স্বার্থ রক্ষা করায় এ বছর বোরো ধানের উৎপাদন ছাড়িয়ে গেছে লক্ষ্যমাত্রা। আবহাওয়া কৃষি উপযোগি, পোকার আক্রমন না থাকা, যথাসময়ে সারের যোগান, কৃষি অধিদপ্তরের মাঠকর্মীদের সঠিক নির্দেশনার কারনে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে বলে দাবি কর্মকর্তাদের। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক আকম শাহারিয়ারের দাবি কক্সবাজারে বোরোর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে খাদ্যে উদ্বৃত্ত থাকবে। তিনি জানান ইতোমধ্যে ৪০ শতাংশ ধান কাটা হয়েছে। অবশিষ্ঠ ধান ১০/২০ দিনের মধ্যে ঘরে তুলতে পারবে কৃষকরা। তবে প্রাকৃতিক দূর্যোগ হলে ভিন্ন কথা। যদি শতভাগ পাকা ধান কৃষকরা ঘরে তুলতে পারে তাহলে জেলার ২৪ লাখ মানুষের যোগান দিয়ে প্রায় ৩৫ হাজার মে.টন চাল উদ্বৃত্ত থাকবে বলে মনে করেন এ কর্মকর্তা।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, নিবিড় বার্ষিক সফল উৎপাদন কর্মসূচীর আওতায় ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে বোরো ধানের উপজেলা ভিত্তিক জমি আবাদ ও উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা এবং অগ্রগতি নির্ধারণ করা হয়। জেলায় চলতি বোরো মওসুমে ৫৭ হাজার ৪শ ৭২ হেক্টর জমিতে আবাদের বিপরীতে সম্ভ্যাব্য উৎপাদন হয়েছে ২ লাখ ৩০ হাজার ৭৪০ মেট্রিক টন চাল।
উপজেলা ভিত্তিক আবাদ ও উৎপাদনের অগ্রগতি যথাক্রমে চকরিয়ায় ১৮ হাজার ৮০০ হেক্টরে ৭৭ হাজার ৬শ ২৩ মেঃ টন, পেকুয়ায় ৭ হাজার ৩শ হেক্টরে ২৯ হাজার ৩শ ৭৫ মেঃ টন, রামুতে ৬ হাজার ৬০০ হেক্টরে ২৫ হাজার ৭শ ৯৪ মেঃ টন, সদরে ৭ হাজার ৩শ হেক্টরে ২৮ হাজার ৭শ ৭ মেঃ টন, উখিয়ায় ৬ হাজার ৪৫০ হেক্টরে ২৫ হাজার ৩শ ৫৮মেঃ টন, টেকনাফে ১ হাজার ২শ ৭৭ হেক্টরে ৪ হাজার ৭শ ৬৭ মেঃ টন, মহেশখালীতে ৭ হাজার ১ শ হেক্টরে ২৮ হাজার ৭শ ২৬ মেঃ টন এবং কুতুবদিয়ায় ২ হাজার ৬শ ৪৫ হেক্টরে ১০ হাজার ৩শ ৮৭ মেঃ টন।
জেলায় বোরো মওসুমে ৩ জাতের ধানের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এদের মধ্যে ৮৮৮৫ হেক্টরে হাইব্রীড জাতের ধানের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৪১,৭৫৯ মেট্রিক টন, উফশী জাতের ৪৬ হাজার ৬শ ৪৯ হেক্টরে ১ লাখ ৮২ হাজার ৮শ ৬৪ মেঃ টন এবং স্থানীয় জাতের ৭৫৩ হেক্টরে ১ হাজার ৪শ ৬০ মেঃ টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়।

Top