মিয়ানমারে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলায় সেনাসহ নিহত ১৯

Myanmar-map.jpg

কক্সবাজার ডেস্ক :
চীন সীমান্তের প্রধান ফটকের কাছে বড় ধরনের হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর চার সদস্যসহ ১৯ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে মিয়ানমারের সরকারি কর্মকর্তারা। শনিবার ভোরে শান রাজ্যের সীমান্ত শহর মুসে মিয়ানমার সেনাবাহিনী পরিচালিত একটি ক্যাসিনো এবং কাছের একটি সেনাপোস্টে একযোগে এ হামলা হয়। তাং বা পালাউং আদিবাসী যোদ্ধাদের দল তাং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি (টিএনএলএ) এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। পশ্চিমের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর দমন-পীড়নের মাত্রা কিছুটা হ্রাস পেতে না পেতেই গত মাস থেকে মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে সংঘাত ছড়িয়ে পড়েছে। চীন ও ভারত সীমান্তের কাচিন প্রদেশে সেনাবাহিনীর নিপীড়ন থেকে বাঁচতে এপ্রিলের প্রথমদিকে প্রায় ছয় হাজার মানুষ নিজেদের ঘরবাড়ি ছাড়তে বাধ্য হয় বলে জানিয়েছিল জাতিসংঘ।
মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন আদিবাসী সংখ্যালঘুদের সংঘাত দীর্ঘদিনের। বৌদ্ধ প্রধান মিয়ানমারে সংখ্যালঘু কিচিনরা প্রধানত খ্রিস্টান। নিজেদের অঞ্চলগুলোর অধিকতর স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে ১৯৬১ সাল থেকে মিয়ানমারের সরকারের বিরুদ্ধে পাহাড়ি উত্তরাঞ্চলের আদিবাসী গোষ্ঠি লড়াই করে আসছে। এ লড়াইয়ে কিচিন ও উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য শান থেকে এ পর্যন্ত প্রায় এক লাখ ২০ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।
মিয়ানমার সরকারের মুখপাত্র জ হতাই বলেন, স্থানীয় সময় ভোর ৫টার দিকে প্রায় একশ সন্ত্রাসী ছোট আগ্নেয়াস্ত্র ও কামান নিয়ে হামলা করে। হামলায় দুই নারীসহ ১৫ বেসামরিক নাগরিক নিহত এবং আরও অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এক পুলিশ কর্মকর্তা এবং তিন সেনা সদস্যও এ হামলায় নিহত হয়েছেন বলে জানান তিনি। হামলার পর মিয়ানমার ও চীনের অনেক নাগরিক সীমান্ত পেরিয়ে চীনে চলে গেছে বলেও জানান তিনি।
বলেন, “এখন মিয়ানমার সেনাবাহিনী আক্রমণ করছে এবং তাদের অনুসরণ করছে। তারা বেসামরিক নাগরিকদের উপর হমলার পর এখন পালিয়ে গেছে। “এটা আদিবাসীদের অধিকার রক্ষার আন্দোলন নয়, এটা সন্ত্রাসী হামলা।” মুসের সরকারি মুখপাত্র গুরুতর আহত অন্তত ২০ জনকে হাসপাতালে ভর্তির কথা জানালেও তাদের মধ্যে কেউ মারা গেছে কিনা বা কতজন মারা গেছে সে সম্পর্কে কোনো তথ্য দেননি। এদিকে টিএনএলএ মুখপাত্র বলেন, ক্যাসিনোতে থাকা সেনা সদস্যরা তাদের হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিল। তবে গোলাগুলির মধ্যে পড়ে বেসামরিক নাগরিকরা প্রাণ হারাতে পারে।

Top