‘পর্নো তারকাকে পরিশোধ করা’ অর্থের হিসাব দিলেন ট্রাম্প

stormy-dynl.jpg

কক্সবাজার ডেস্ক :
মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে নীরব থাকতে পর্নো তারকা স্টর্মি ডানিয়েলসকে অর্থ দেওয়া আইনজীবী মাইকেল কোহেনকে পরিশোধ করা অর্থের হিসাব দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রকাশিত এই হিসাব ট্রাম্পের দেওয়া আগের আর্থিক বিবরণীতেই থাকা উচিত ছিল বলে বুধবার মন্তব্য করেছে যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি নীতি বিষয়ক দপ্তর। কোহেনকে ২০১৬ সালের ব্যয় বাবদ পরিশোধ করা মার্কিন প্রেসিডেন্টের অর্থের মধ্যে এক লাখ এক ডলার থেকে আড়াই লাখ ডলারের বিভিন্ন হিসাব আছে বলে প্রকাশিত নথির বরাত দিয়ে জানিয়েছে বিবিসি। স্টর্মি ডানিয়েলসের দাবি, ২০০৬ সালে তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন ট্রাম্প।
কিন্ত ডানিয়েলস যাতে বিষয়টি নিয়ে মুখ না খোলেন সেজন্যই ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাসখানেক আগে ট্রাম্প তার আইনজীবী মাইকেল কোহেনের মাধ্যমে ডানিয়েলসকে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দেন। কোহেন এরই মধ্যে ডানিয়েলসকে ওই অর্থ দেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। ট্রাম্প এ অর্থই পরে কোহেনকে পরিশোধ করেছেন বলে কয়েক মাস আগে ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানান তার আইনী টিমের নতুন সদস্য রুডি গিউলিয়ানি। গিউলিয়ানি বলেন, ট্রাম্পের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের ‘মিথ্যা ও জবরদস্তি অভিযোগ’ ধামাচাপা দিতেই ওই লেনদেন হয়েছিল।
স্টর্মি ডানিয়েলসকে দেওয়া কোহেনের অর্থের বিষয়ে কিছুই জানতেন না বলে প্রথমে দাবি করলেও পরে ওই অর্থ পরিশোধের কথা স্বীকার করে নেন ট্রাম্প। এরই ধারাবাহিকতায় ট্রাম্প এবার ২০১৬ সালের ব্যয় বাবদ কোহেনকে পরিশোধ করা অর্থের হিসাব প্রকাশ করলেন। ট্রাম্পের প্রকাশ করা নথিতে ২০১৭ সালে বিভিন্ন ভাড়া, লাইসেন্স, বই ও টেলিভিশনের রয়ালিটি, কোম্পানি শেয়ার, হোটেল ও গল্ফ কোর্সের ব্যবস্থাপনা ফি এবং ভারত থেকে দুবাই পর্যন্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে তার সুদবাবদ আয়ের তথ্যও আছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। আইনগত বাধ্যবাধকতা না থাকলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ‘স্বচ্ছতার স্বার্থে’ এই হিসাব প্রকাশ করেছেন বলে সরবরাহ করা নথির ফুটনোটে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।
যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি নীতি বিষয়ক দপ্তরের (ওজিই) প্রধান এক চিঠিতে বলেছেন, ট্রাম্পের প্রকাশ করা নথির দেনা অংশে ‘কোহেনের পরিশোধ করা অর্থের উল্লেখ’ থাকা উচিত ছিল। “যে কোনো তদন্তের সঙ্গে প্রাসঙ্গিকতা খুঁজে পেলে, আপনি এটি (ট্রাম্পের প্রকাশ করা হিসাব) অনুসরণ করতে পারেন,” ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোজেনস্টাইনকে লেখা ওই চিঠিতে বলেন ওজিই-র ভারপ্রাপ্ত পরিচালক। রিপাবলিকান শিবিরের সঙ্গে আঁতাতের মাধ্যমে রাশিয়ানরা ২০১৬-র প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করেছিল কি না, মার্কিন বিচার বিভাগের এ সংক্রান্ত তদন্তের দেখভাল করছেন রোজেনস্টাইন।
পর্নো জগতে স্টর্মি ডানিয়েলস নামে খ্যাত স্টিফানি ক্লিফোর্ডকে দেওয়া অর্থ যদি রিপাবলিকান শিবিরের নির্বাচনী তহবিল থেকে খরচ করা হয়, তাহলে তা ট্রাম্পের জন্য আইনী ঝামেলা সৃষ্টি করতে পারে বলে ধারণা পর্যবেক্ষকদের। স্টিফানির মুখ বন্ধ রাখার লেনদেনে জড়িত কোহেনের দপ্তর থেকে নথি জব্দে গত মাসে অভিযানও চালিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই; প্রেসিডেন্টের এই আইনজীবী কোনো ফৌজদারি অপরাধে জড়িত ছিলেন কি না তা নিয়েও তদন্ত চলছে। ২০০৬ সালে ক্যালিফোর্নিয়া ও নেভাদার মাঝামাঝি লেক তাহোই এর একটি হোটেল কক্ষে ট্রাম্পের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক হয়েছিল বলে ভাষ্য স্টিফানির। ট্রাম্প শুরু থেকেই এ অভিযোগ ‘দৃঢ়ভাবে অস্বীকার’ করে আসছেন বলে তার আইনজীবী জানিয়েছেন।

Top