চকরিয়ায় তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে দু’দফা হামলা শিশু ও নারীসহ ৬ জন আহত

Mijba-Chakaria-21-05-2018.docx-1.jpg

স্টাফ রিপোর্টার, চকরিয়া :
চকরিয়ার কৈয়ারবিলে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে একদল সন্ত্রাসী হাসপাতালে দু’ দফায় হামলা করে একই পরিবারের শিশু, মা সহ ৫ জনকে আহত করেছে। ধারালো অস্ত্রে আহত করে স্বর্ণ, নগদ টাকা সহ ১২ লক্ষ টাকার মালামাল লুট করেছে। ২১ মে সোমবার দুপুর ১১ থেকে ১টায় দু’দফা হামলার ঘটনায় আহত রুহুল কাদের (৪৫) ও তার স্ত্রী হামিদা বেগম (৩৫) কে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
চিকিৎসাধীন আহতের বোন সেলিনা বেগম জানান, চকরিয়া উপজেলার মধ্যম কৈয়ারবিল হাজী দেলোয়ার (৬৫) গং এর সাথে বসতবাড়ির চলাচল রাস্তা নিয়ে প্রতিপক্ষ আবদু জলিল মাষ্টার (৫০) গং এর সাথে বিরোধ চলে আসছিল। তারই জের ধরে ২১মে সকালে উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এর কিছুক্ষণ পর আবদু জলিল গং ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে দুপুর সাড়ে ১১টায় হাজী দেলোয়ার হোছন (৭৫) এর প্রবাসী পুত্রদের বসতঘরে ঢুকে গৃহবধুদের উপর অতর্কিত হামলা ও লুটপাট চালায়। আবদুল জলিলের নেতৃত্বে ৩টি বসত ঘরে ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। বাধা দিতে গিয়ে ধারালো কিরিচের কুপে গুরুতর আহত হয় ৬বছরের শিশু সহ ৫জন।
সেলিনা আরও জানায়, চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসলে সে ও তার ভাড়াটিয়ারা ষাটোর্ধ হাজ্বী দেলোয়ার হোছনকে ও মারধর করে চিকিৎসা নিতে বাধা দেয়। আহতরা হলেন, জন্নাতুল মাওয়া মুক্তা (৬), তৈয়বা বেগম (২৩), হামিদা বেগম (৩৫) ও তার স্বামী রুহুল কাদের (৪৫) এবং সাদিয়া সুলতানা (২৫)। ২১মে সোমবার দুপুর ১১ থেকে ১টায় ২দফা হামলার ঘটনায় আহতদের আশঙ্কজনক হওয়ায় রুহুল কাদের (৪৫) ও তার স্ত্রী হামিদা বেগম (৩৫) কে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়ে হয়েছে।

Top