নাইক্ষ্যংছড়িতে ডাকাতি অব্যাহত

download-2-4.jpg

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি :
পার্বত্য বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সোনাইছড়ির বৈদ্যের ছড়া এলাকায় গতকাল সোমবার তৃতীয় দিনে দুই বসতঘর ও ৫ দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বৈদ্যের ছড়া নামক গ্রামে এ ঘটনার পরে পুরো সোনাইছড়ি জুড়ে ডাকাত আতংক বিরাজ করছে।
জানা যায়, একদিন বিরতির পর সোমবার দিবাগত ১ টার দিকে ১৬/১৭ জনের ডাকাতদলটি প্রথমে স্থানীয় বৈদ্যের ছড়া গ্রামের জাব্বার আলীর পুত্র নুরুল আলমের বাড়ি ও জাব্বার আলীর বাড়িতে হানা দেয়। পরে বৈদ্যের ছড়া স্টেশন এলাকার ৫ দোকানে লুটতরাজ চালায়। এসব ডাকাতিতে ডাকাতদল আনুমানিক ২ লক্ষাধিক টাকার সম্পদ লুটে নিয়ে চম্পট দেয় তাদের পাহাড়ি আস্তানায়। দোকানী আবুল কালাম জানান,ডাকাতরা তার নিজের দোকান, মুদি ও চা দোকানী ব্যবসায়ী সুলতান,নুরুল ইসলাম,জাফর আলম ও আলা উদ্দিনের মূল্যবান মালামাল লুটে নেয়ায় তারা এখন চরম আর্থিক কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। বিশেষ করে ঈদের আগের এ সময়ে তারা পরিবার পরিজন ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হওয়ার আশংকা করছেন।
এ বিষয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর শেখ জানান, তিনি ছুটি শেষ করে গতকাল সোমবার নাইক্ষ্যংছড়ি এসেছেন। ডাকাতদের এসব অপতৎপরতা সহ্য করা হবে না। গত সোমবারের বিষয়টি বৃষ্টি এবং বৈদ্যের ছড়ার মতো দূগর্ম এলাকা হওয়ায় এ দূঘর্টনা ঘটেছে। তিনি আরো জানান, রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকা থেকে অনেক লোক এখানে জড়িত রয়েছে বলে তার সন্দেহ। তবে সে যেই হোক না কেন কাউকেই ছাড় নয়। এ বিষয়ে সকলের সহযোগিতা চান তিনি।
এরআগে শনিবার দিবাগতরাতে উপজেলার সোনাইছড়ির একই এলাকার মধ্যম জারুলিয়াছড়ি এলাকায় ডাকাত দলের নৃশংস হামলায় ১ কৃষক দু’হাতের কবজি কর্তন সহ ৫ জন আহত হয়েছিলো। এতে ৩ বসতঘর ও ২ দোকানে দূধর্ষ ডাকাতির ঘটনাও ঘটিয়েছিল ডাকাতদল। পরের দিন তারা ডাকাতি করে সোনাইছড়ি পুলিশ স্টেশনের পাশের গ্রামের গাড়ি মালিক নজুমিয়ার বাড়িতে।
এরও কয়েক মাস আসে এই একই ইউনিয়নের জারুলিয়াছড়ি নতুন সড়কের রাস্তার মাথায় গণডাকাতির ঘটনায় অর্ধশত পথচারীকে মারধর ও হাত-পা বেধেঁ লক্ষ লক্ষ টাকা লুট করে ডাকাত দল। এতে সোনাইছড়ির ইউপি চেয়ারম্যান বাহাইন মার্মা ও রাজারকূলের চেয়ারম্যান সহ দুজনও পথচারী হিসেবে ছিলেন। তারা ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী।

Top