জেলায় সাড়ে ৪ লাখ শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

download-5-3.jpg

কক্সবাজার রিপোর্ট :

কক্সবাজারে ৪ লাখ ৫১ হাজার ৬৬৫ শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল। এরমধ্যে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৫২ হাজার ৩৩০ জন ও ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী রয়েছে ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৩৩৫ শিশু। আগামী ১৪ জুলাই সারাদেশের ন্যায় কক্সবাজারেও জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন চলবে। আট উপজেলা ছাড়াও পৃথকভাবে কক্সবাজার পৌরসভায় এ কার্যক্রম পরিচালিত হবে।
বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দুপুর ১২ টায় জেলা ইপিআই সেন্টারে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন (১ম রাউন্ড) সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এক সাংবাদিক অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এসব তথ্য জানানো হয়।
ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন বাস্তবায়নের জন্য টিকাদান কেন্দ্রের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ৯৫১ টি। এরমধ্যে স্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র ৯, অস্থায়ী ১ হাজার ৮৪০, ভ্রাম্যমাণ ২৭ ও ৭৫ টি অতিরিক্ত টিকাদান কেন্দ্র।
এছাড়াও টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য নিয়োজিত থাকবে স্বাস্থ্য সহকারী ২৩৫ জন, পরিবার কল্যাণ সহকারী ২১১ জন, স্বেচ্ছাসেবক ৫ হাজার ৪০৭ জন। পুরো কর্মসূচি তত্ত্বাবধানের জন্য ২১৯ জন তত্ত্বাবধায়ক নিয়োজিত থাকবে।
সভায় জানানো হয়, ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুকে খাওয়ানো হবে ‘নীল রঙের’ এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুকে খাওয়ানো হবে ‘লাল রঙেগর’ ভিটামিন এ ক্যাপসুল। তবে ৪ মাসের মধ্যে যেসব শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে, তাদেরকে ১৪ জুলাই’র ক্যাম্পেইনে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না। আর যেসব শিশু মারাত্মক অসুস্থ তাদেরকেও ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না।
ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন নিয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন সিভিল সার্জন ডা. আব্দুস সালাম। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল কর্মকর্তা (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. রনজন বড়–য়া রাজন, ইউসিফের কর্মকর্তা তাহমিনা ফেরদৌসি, জিয়াউল হক, জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক সিরাজুল ইসলাম সবুজ প্রমুখ।

Top