রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ইউএনএইচসিআরের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে মিয়ানমার

Shahriar-Alam-bg20180329132747.jpg

কক্সবাজার ডেস্ক ॥

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম জানিয়েছেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার জন্য জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থার সঙ্গে মিয়ানমার যুক্ত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার (২৯ মার্চ) দুপুরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনে কেন্দ্রে এক সেমিনার শেষে তিনি এই কথা বলেন। মে মাসে অনুষ্ঠেয় ৪৫তম ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের এক বৈঠক বিষয়ে সেমিনারটির আয়োজন করা হয়।

কবে থেকে মিয়ানমার কাজ শুরু করবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটি মিয়ানমারের বিষয়। আমার পক্ষে বলা সম্ভব না।’

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত ১০ লাখ ৮০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গাকে নিবন্ধিত করা হয়েছে।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দুই মাস আগে আমাদের দুই দেশের মধ্যে চুক্তি ও ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জেমেন্ট স্বাক্ষর হয়েছে। তবে, এখনও রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠনো যায়নি। এজন্য আমরা বিচলিত নই। দ্রুত পাঠালে সমস্যা হতে পারে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী মে মাসে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ইসলামী সম্মেলন সংস্থার (ওআইসি) পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ৪৫তম সম্মেলন। এই সম্মেলনে জোরালোভাবে উপস্থাপন করা হবে রোহিঙ্গা সংকটের বিষয়টি।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলনে রোহিঙ্গা ইস্যুটি জোরালোভাবে তুলে ধরা হবে। কেবল তা-ই নয়, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিতে কিছু করার জন্যও সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হবে। 

সম্মেলনে অংশ নিতে আসা পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ৪ মে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন নিয়ে যাওয়া হবে উল্লেখ করে শাহরিয়ার আলম বলেন, ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের কাছে রোহিঙ্গা আশ্রয়ের দিক থেকে বাংলাদেশের মানবিকবোধ উপস্থাপন করা হবে।

তিনি জানান, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করার জন্য আমাদের সঙ্গে জাতিসংঘ শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনের (ইউএনএইচসিআর) সমঝোতা হয়েছিল। এখন মিয়ানমারও সংস্থাটির সঙ্গে এ বিষয়ে কাজ করতে রাজি হয়েছে। সম্মেলনে বাংলাদেশের উন্নয়নও তুলে ধরা হবে বলে জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

Top